করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত শিশুরা

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত শিশুরা

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত শিশুরা

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় বিপর্যস্ত শিশুরাও। বিগত সময়ের থেকে দেশের হাসপাতালগুলোতে বেড়েছে করোনা পজিটিভ শিশু রোগীর সংখ্যা। চিকিৎসকরা বলছেন, করোনার পাশাপাশি ডেঙ্গু ও শীতকালীন ভাইরাসজনিত নানা রোগের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় হিমশিম খাচ্ছেন তারা।

ঢাকা শিশু হাসপাতালে দেড় বছর বয়সের আদিবা। ছোট্ট শরীরে দানা বেঁধেছে মহামারি করোনা। পাশাপাশি জন্ম থেকেই আক্রান্ত জটিল কিছু সমস্যায়। সব মিলিয়ে কিছুতেই যেন কাটছে না শঙ্কা-জটিলতা। আদিবার মা জানান, দুদিন আগে পরীক্ষা করা হয়েছিল। তখন তার করোনা ছিল না।

ঢাকা শিশু হাসপাতালে করোনা ইউনিটে শয্যা সংখ্যা ২০টি হলেও বর্তমানে, পজেটিভ রোগীর সংখ্যা ২১। এ ছাড়া অক্টোবর মাসে করোনা পজেটিভ রোগীর সংখ্যা ছিল যেখানে ৪৩ জন সেখানে চলতি মাসের ২১ দিনেই পজেটিভ রোগী ৬৮ জন। শীত বাড়লে সংকট আরও বাড়বে বলে মনে করছেন চিকিৎসকরা। ঢাকা শিশু হাসপাতালের এই চিকিৎসক জানান, মাঝখানে করোনা রোগীর সংখ্যা অনেক কমে এসেছিল। প্রায় অর্ধেক বেডে ফাকা থাকত। এখন আবার রোগী বাড়ছে। বেডের চেয়ে রোগীর সংখ্যা বেশি।

এদিকে, হাসপাতালে প্রতিদিনই বাড়ছে জ্বর, কাশি, ঠাণ্ডাসহ ভাইরাসজনিত শিশু রোগীর সংখ্যা।

শিশুর করোনা পজেটিভের দায় অভিভাবকরা এড়াতে পারেন না জানিয়ে চিকিৎসকরা বলছেন, বিকল্প নেই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার। করোনার পাশাপাশি ডেঙ্গু ও শীতকালীন ভাইরাসজনিত সমস্যায় পরিস্থিতি ভয়াবহ হওয়ার শঙ্কা তাদের।

চিকিৎসকরা বলছেন, অভিভাবকরা শীতকালীন সাধারণ রোগের ব্যাপারে সচেতন হলে অনেক বড় বড় রোগের সংক্রমণের হাত থেকে শিশুদের রক্ষা সম্ভব।

শিশুর যে কোনো সমস্যায় বিভ্রান্ত না হয়ে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসের পরামর্শ নেওয়ার অনুরোধ চিকিৎসকদের।
সূত্র: সময়নিউজ.টিভি